২৩ এপ্রিল ধ্বংস হচ্ছে পৃথিবী?

By: অরিত্র অনিকেত 2018-04-16 10:50:26 বিজ্ঞান-প্রযুক্তি

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি ডেস্ক : গত বছরের সেপ্টেম্বরে পৃথিবী ধ্বংস হওয়ার কথা ছিল। তা হয়নি। সেইসময়ে তা নিয়ে প্রচুর লেখালেখি হয়েছিল। বিজ্ঞানী-অবৈজ্ঞানিক মহলে প্রচুর আলোচনাও চলেছিল। যদিও আমরা সকলেই বহাল তবিয়তে বেঁচে রয়েছি। পাল্টে গিয়েছে একটি বছর। তবে এবার নাকি সত্যিই পৃথিবী ধ্বংস হতে চলেছে। নতুন এই দাবি ঘিরে নতুন করে শোরগোল শুরু হয়েছে।

বলা হচ্ছে, একসঙ্গে পৃথিবীর সমস্ত জনপদ ও জীবন ধ্বংস হতে চলেছে। আগামী ২৩ এপ্রিল সেই কালো দিন। সেদিন মৃত্যু গ্রহ বা ডেথ প্ল্যানেট-এর আবির্ভাব হবে মহাকাশে। যার ফলে নিশ্চিত হবে পৃথিবীর ধ্বংস।

এই মৃত্যু গ্রহের নাম নিবিরু। বলা হচ্ছে, ২৩ এপ্রিল সূর্ষ, চাঁদ ও শুক্র গ্রহ এক সরলরেখায় চলে আসবে। যিশু খ্রিস্টকেও এই প্রসঙ্গে টেনে আনা হয়েছে। এই কাজটি করেছেন কন্সপিরেসি থিওরিস্ট বা ষড়যন্ত্রকারী তত্ত্বের প্রবক্তারা। গত বছরের সেপ্টেম্বরের পরে এবার এ বছরের এপ্রিলে কন্সপিরেসি থিওরিস্ট ডেভিড মিয়াডে এই ঘোষণা করেছেন। এর আগে গতবছরের সেপ্টেম্বরের ক্ষেত্রেও একই ঘোষণা তিনি করেছিলেন। সবচেয়ে আশ্চর্যের আগামী ২২ এপ্রিল আর্থ ডে। তার পরের দিনই পৃথিবী ধ্বংসের দাবির মধ্যে কোনো রহস্য আছে তা নিয়ে প্রশ্ন করছেন অনেকেই।

মার্কিন মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা অবশ্য এই তত্ত্বকে পুরোপুরি উড়িয়ে দিয়েছে। নিবিরু নামে কোনো গ্রহ মহাকাশে নেই বলেই জানিয়েছে। ফলে আগামী ২৩ এপ্রিল পৃথিবীর ধ্বংসের কোনো সম্ভাবনা নেই বলে স্পষ্ট করা হয়েছে।

নাসার দাবি সত্ত্বেও কন্সপিরেসি থিওরিস্টরা তা মানতে নারাজ। উল্টে তারা বলছেন নাসা ও এমন অনেক ক্ষমতাশালী সংস্থা বা গোষ্ঠী আসল ঘটনা সামনে আনতে চায় না। তা ঢেকে দিতে চায়। ইচ্ছে করেই নিবিরু-র অস্তিত্বকে অস্বীকার করা হচ্ছে। কন্সপিরেসি থিওরিস্টদের মতে, নিবিরু কোনো কাল্পনিক ভাবনা নয়। এই গ্রহ মহাকাশেই রয়েছে। এবং পৃথিবীর কাছাকাছিই রয়েছে। বলা হচ্ছে, দশ হাজার বছর আগে পৃথিবীর একটি সভ্যতা ধ্বংস হয়ে গিয়েছিল কারণ নিবিরু কাছাকাছি চলে এসেছিল। এবারও সেরকম কিছুই ঘটতে চলেছে।

এর আগে ২০১৫ সালের ডিসেম্বরে, ২০১৬ সালের এপ্রিল ও ডিসেম্বরে, ২০১৭ সালে সেপ্টেম্বরে পৃথিবীর ধ্বংসের ভবিষ্যদ্বাণী করা হয়েছিল। তবে তার কোনোটাই মেলেনি। নিবিরু গ্রহকে কখনো মহাকাশে দেখা যায়নি। কোনো বিজ্ঞানী এই তত্ত্বকে বিশ্বাস করেন না।