পুরুষরা ব্যবহার করবেন কন্ডোমের বিকল্প গর্ভনিরোধক জেল

By: 2018-01-02 01:19:21 স্বাস্থ্য
ছবিঃ প্রতীকী

স্বাস্থ্য ডেস্ক : গর্ভনিরোধন পদ্ধতিতে বড়ো সাফল্যের মুখে বিজ্ঞানীরা। এবার বাজারে আসতে পারে পুরুষদের গর্ভনিরোধক জেল। গবেষণার পর, এখন এই জেল নিয়ে ট্রায়াল চলছে। সাফল্যে পেলে বাজারে আসবে বিশ্বের প্রথম গর্ভনিরোধক জেল। এতদিন কন্ডোম ও ভাসেকটমি সার্জারির সাহায্যে চলত পুরুষদের গর্ভনিরোধন। এবার এই জেলের সাহায্যে গর্ভনিরোধনে অংশ নিতে পারবেন পুরুষরা।

 

বিজ্ঞানীদের এমন ঘোষণার পর বড় সাফল্যের সামনে গর্ভনিরোধক পদ্ধতি। পুরুষদের জন্য গর্ভনিরোধক হিসেবে এখন কন্ডোম ব্যবহৃত হয়। এছাড়া আরও একটি পদ্ধতি আছে। পুরুষাঙ্গে সার্জারি করে গর্ভনিরোধন সম্ভব। এছাড়াও আছে গর্ভনিরোধক ট্যাবলেট বা মহিলাদের কন্ডোম। কিন্তু এমন জেলের ব্যবহার এর আগে হয়নি। ট্রায়ালের মাধ্যমে এই জেলকে আরও উন্নত করতে চান বিজ্ঞানীরা। সফল হলে আগামী বছর এপ্রিল থেকে বাজারে দেখা যেতে পারে এই জেল। সাফল্য পেলে পরবর্তীকালে মহিলাদের জন্য এমন জেল আনবেন বিজ্ঞানীরা।

 

কীভাবে কাজ করবে এই জেল ?

এই গর্ভনিরোধক জেলের মধ্যে একটি প্রোগেস্টিন থাকবে, যার নাম নেস্টেরন। থাকবে টেস্টোস্টেরনের একটি সিন্থেটিক রাসায়নিক। অণ্ডকোষ থেকে হরমোন নিঃসরণ নিয়ন্ত্রণ করবে প্রোগেস্টিন

 

ট্রায়ালে পুরুষদের জন্য এই গর্ভনিরোধক জেলের একটি টিউব দেওয়া হবে। প্রত্যেকদিন অর্ধেক চা-চামচ জেল ব্যবহার করতে হবে। চার মাস ধরে নিয়ম করে হাত ও কাঁধে এই জেল লাগাতে হবে 

 

সঠিকভাবে এই পদ্ধতি মানলে ৭২ ঘণ্টা বীর্যপাতের হার কমবে পুরুষের

 

২০১২ সালে এই জেল নিয়ে একটি গবেষণা চালান বিজ্ঞানীরা। যেখানে দেখা যায়, ৯০ শতাংশ পুরুষদের ক্ষেত্রে এই গর্ভনিরোধক জেল সফলভাবে কাজ করছে।  মহিলারা যেমন অপ্রত্যাশিত মাতৃত্ব চান না, একই ভাবে পুরুষদের সেই অধিকার থাকা উচিত।

 

প্রধান গবেষক স্টিফানি পেজ বলেন, “প্রত্যেকদিন সঠিকভাবে জেল লাগালে, বীর্যের নিয়ন্ত্রণ করবে এই জেল। এবিষয়ে আমি নিশ্চিত।”  চার মাস ট্রায়াল চলার পর দেখা হবে, পুরুষদের স্পার্ম কাউন্ট কতটা নিয়ন্ত্রণে এসেছে। তারপর মহিলাদের জন্য এই জেল ব্যবহারের ট্রায়াল শুরু করবেন বিজ্ঞানীরা। ট্রায়ালে সফল হলে বাজারে আসবে এই গর্ভনিরোধক জেল।