শীষ পোকার আক্রমনে ধানের ব্যাপক ক্ষতি, বিপাকে কৃষক

রাঙ্গাবালী (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি:  ধান পাকতে এখনো সময় বাকি। এরই মধ্যে শীষ পোকার আক্রমণ। কাঁচা ধান কাটতে শুরু করেছে। কীটনাশক ব্যবহার করেও দমন করা যাচ্ছেনা এ পোকা। শীষ পোকায় কাটার কারণে ক্ষেতের ধান শুকিয়ে চিটা হয়ে যাচ্ছে। শীষ পোকার আক্রমণে আমন ফসলের ব্যপক ক্ষতির সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। এ নিয়ে বিপাকে পরেছেন পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালী উপজেলার শত শত কৃষক। এভাবে চলতে থাকলে আমন চাষীদের মোটা অংকের লোকশান গুনতে হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

 

স্থানীয় কৃষকরা জানায়, গত কয়েকদিন আগে নিম্ন চাপের প্রভাবে ভারী বর্ষন ও বাতাসের তান্ডবে আমন ধান সুয়ে পরে। সদ্য বের হওয়া এসব আমন ধান শুয়ে পরায় ব্যপক ক্ষতি হয়। ঝর বৃষ্টিতে শুয়ে পরা কাঁচা ধান রোদের তাপে শুকিয়ে চিটা হয়ে গেছে। এর রেশ কাটতে না কাটতেই শীষ পোকার আবির্ভাব। ধান পাকতে এখনো সময় বাকি। কাঁচা ধানে শুরু হয়েছে পোকার আক্রমণ। এ যেন মরার উপর খারার ঘা! কীটনাশক ব্যবহার করেও কোন ফল পাচ্ছেনা কৃষক।

 

উপজেলার বড়বাইশদিয়া ইউনিয়নের কাটাখালী গ্রামের কৃষক শাহিন মিয়া বলেন, ধার দেনা করে আমি দেড়কানি জমিতে ধান চাষ করেছি। অর্ধেক ধান পোকায় কেটে ফেলেছে। এখন আমি চিন্তিত। ঋণের টাকা কিভাবে পরিশোধ করবো জানিনা। একই ইউনিয়নের টুঙ্গিবাড়িয়া গ্রামের আফজাল গাজী বলেন, আমি দুই কানি জমিতে আমন দিয়েছি। প্রায় তিন ভাগের এক ভাগ ধান পোকায় কেটে ফেলেছে। কিটনাশক দিয়েও কোন লাভ হচ্ছেনা। কোন ফল হয়নি।

 

রাঙ্গাবালী উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মো.মনিরুল ইসলাম জানান, এ ব্যপারে আমাদের উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তাগণ মাঠে গিয়ে কৃষকদের পরামর্শ দিচ্ছেন। তবে প্রতিকুল আবহাওয়ার কারনে কীটনাশক ভালো কাজ করছেনা। এছাড়াও আমরা কৃষকদের বিভিন্নভাবে সহযোগিতা করে যাচ্ছি।

বাংলা প্রতিদিন/জাওয়াদুল কবির প্রিতম

সর্বশেষ