শিল্পীদের পাশে ছিলাম সবসময় :জাকির হোসেন

জাকির হোসেন ঢাকাই সিনেমার একজন নৃত্যপরিচালক।সেই ১৯৯১ সালে চিত্রপাড়ার আঙিনায় প্রবেশ করেন এই নৃত্যপরিচালক।জনপ্রিয় নৃত্যপরিচালক মাসুম বাবুল এর সঙ্গে থেকে প্রায় দীর্ঘদিন সহকারী নৃত্য পরিচালনা করার পরে, নিজেকেই কিছুদিন পরে নৃত্যপরিচালক হিসাবে মেলে ধরেন।এখন পর্যন্ত ৩০০ সিনেমায় নৃত্য পরিচালনা করেছেন জাকির হোসেন।

জাকির হোসেন ২০১৭ সালে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচনে অমিত -ওমরসানী প্যানেল থেকে সংস্কৃতি ও ক্রীড়া সম্পাদক পদে নির্বাচন করেন এবং পরবর্তীতে বিপুল ভোটে জয়ী হন।এবারও তিনি একই পদে নির্বাচন করেছেন মিশা-জায়েদ এর প্যানেল থেকে।

নির্বাচন করার প্রসঙ্গে তিনি ‘বাংলা প্রতিদিন ‘কে জানান -আসলে নির্বাচন করতাম না, কারণটা হচ্ছে সাংগঠনিক কাজে এতটাই ব্যস্ত থাকা হয় যে, নিজের অনেক কাজই করতে পরে সমস্যা হয়।এছাড়াও সিনেমায় কাজ করতে পরে সমস্যায় পড়তে হয় ,দেখা যায় যে সমিতির কোনো একটি কাজে ব্যস্ত হয়ে গেছি।তারপরও এই সমিতিকে ভালোবাসি এবং শিল্পীদের ভালোবাসি।তাদের পাশে আগেও ছিলাম এখনো আছি সময় থাকবো।

জাকির হোসেন আরো বলেন -আমি কতটুকু শিল্পীদের পাশে ছিলাম সেটা বলতে চাই না ,শিল্পীরাই তা ভালো জানেন।আমি এই সমিতির জন্য নানান জায়গায় নিজেকে উপস্থিত রেখেছি।কোনো শিল্পীর মৃত্যু ঘটা থেকে শুরু করে মিলাদ পর্যন্ত তাদের পরিবারের পাশে থেকেছি।কেউ অসুস্থ থাকলে বারবার খবর নিয়েছি , সমিতি’তে যে কোনো সভা থেকে শুরু করে যেকোনো কাজে শিল্পীদের অংশগগ্রহন করার জন্য বলেছি।সকল কাজে নিজেকে নিয়োজিত রেখেছি, শিল্পীদের স্বার্থ রক্ষায় কাজ করেছি।আজ নির্বাচন আসছে বলে ভোট চাইছি তার জোরে,যে কাজ করেছি এবং সবাই দেখেছে।শেষ কথা একটি বলবো শিল্পীদের জন্য সারাজীবনই থাকবো এবং তাদের জননী কাজ করে যাবো ও তাদের জন্য যেখানে যেতে হয় যাবো।

বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচন আগামী ১৮ অক্টোবরের পরিবর্তে ২৫ অক্টোবর অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

আসন্ন চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচনে প্রধান নির্বাচন কমিশনারের দায়িত্ব পালন করতে চলেছেন এক সময়ের জনপ্রিয় চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন। চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির ২০১৯-২০২১ মেয়াদের কমিটি নির্বাচনে ভোটগ্রহণ হবে ওই দিন। গতবারের মতো এবারও এক প্যানেল থেকে নির্বাচন করছেন মিশা সওদাগর ও জায়েদ খান। আর স্বতন্ত্র পদে নির্বাচন করছেন চলচ্চিত্রের প্রিয়দর্শিনী মৌসুমী।