আজ রাতে এটিএন বাংলায় মনোজ অর্ষার ‘ভালোবাসার মায়াজাল ‘

ছোট পর্দার ‘ডায়নামাইটস ডিরেক্টর ‘ বলা হয় নির্মাতা সীমান্ত সজল কে | প্রতিনিয়ত সজল তার নতুন নির্মিত নাটকে নতুনত্বের হৃদয় স্পর্শের মতন গল্পের আঁচ দিয়ে যান |

ঠিক তেমনি এক নাটক এর নাম ‘ভালোবাসার মায়াজাল ‘ | ঘটনাক্রমে এ নাটকের গল্পে দেখা যাবে , ছোট বোন অনেক আগে থেকে ভালো বাসতো মহল্লার যেই ছেলেটাকে ঘটনাক্রমে সেই ছেলের সাথে বিয়ের কথা চলতে থাকে বড় বোনের। ছোট বোন পারিবারিক ভাবে জানতে পেরে কষ্ট পায় ঠিকই কিন্তু ইচ্ছে করে বড় বোনের সুখের কথা ভেবে সে অনেক দূরে চলে যায়।

অনেক পরে বড় বোনের ভরা সংসার দেখতে আসলে ঘটনাক্রমে বড় বোন আস্তে আস্তে টের পেয়ে যায় তার স্বামী তার ছোট বোনের প্রতি দূর্বল। এদিকে ছোট বোন কলেজের সার্টিফিকেট বা প্রয়োজনীয় কাগজ তোলার নাম দিয়ে দুলাভাই কে নিয়ে পুরনো বটগাছ তলায় যায়।এটা তাদের পুরনো চেনা জায়গা।যেখানে তাদের অতীত জড়িয়ে আছে।সেখানে গিয়ে সে দুলাভাই কে ক্লিয়ার করে সেদিন কেন সে না বলে বিদেচ চলে গিয়েছিলো। কারণ শারীরিক অসুস্থতার জন্য সে আর কোন দিনই মা হতে পারবে না।

তাই মা হতে অক্ষম নারী কি করে স্বামী সংসার সুখে ভরে তুলবে। তাছাড়া যখন সে জানতে পারে পারিবারিক ভাবে তার বড় বোনের সাথেই তার প্রমিকের বিয়ের কথা চলছে।সে তখন জায়গা ছেড়প দিয়ে বড় বোনকে জায়গা তৈরি করে দেয়। আজও একই দশা। বোনের সংসারে আসার পর বোন তাকে ও নিজ স্বামীকে সন্দেহ করা শুরু করে। বোন এখন সন্তান সম্ভবা।খুশিতে বোনের সন্তানের জন্য তাই ছোট বোন তার সকল সম্পত্তি উপহার হিসেবে উইল করে দিয়ে কাউকে না বলে চিঠি লিখে দিয়ে কেঁদে চলে যায়।

সকালে ছোট বোনকে দেখতে না পেয়ে তার ঘরে গিয়ে চিঠি ও উইল এর দলিল পেয়ে বড় বোনের ভুল ভাঙগে। বড় বোন মায়ায় তার স্বামীর বুকে কান্নায় ভেঙে পড়ে। ঝরা ফুল ঝরে সে কান্নায় শরীক হয়।আমাদের ভুলগুলো এভাবে ফুল হয়ে ঝরে পড়ুক।এ যে জগত সংসারের মায়াজাল। ভালোবাসার মায়াজাল | আরো দেখতে হলে জানতে হলে আজ শুক্রবার রাত ৮ টায় এটিএন বাংলায় চোখ রাখতে হবে |

নাটকটির প্রসঙ্গে কথা হয় তরুণ নির্মাতা সীমান্ত সজলের সাথে তিনি বলেন,মায়াজাল,ভালোবাসার মায়াজাল।আমাদের জীবনে মায়া ভালোলাগা ভালোবাসা, ভালোবাসার পরিনয় সব অবিচ্ছেদ্য অংশ। তেমনি ভালোবাসার মায়াজাল নাটকে আমরা দেখতে পাবো ত্রিভুজ প্রেমের গল্প। প্রেমের টানা পোড়নের গল্প। প্রেমের কারনে, মায়ার কারনে কাছে আসার গল্প, সেক্রিফাইস করে দূরে যাবার গল্প ঠিক এমন করেই তুলে ধরেছি আমি নাটকটিতে |

সীমান্ত সজল আরো বলেন – আমার নির্মিত প্রতিটি নাটকই আমার কাছে একেকটি সন্তানের মত | আমি চেষ্টা করি দর্শকের জন্য ভালো কিছু উপহার দেয়ার জন্য ,এর জন্য আমি অনেক বেছে বেছে গল্পগুলো নির্ধারণ করি | আশা করছি আমার অন্যসব নাটকের মতো এটাও দর্শকের কাছে ভালো লাগবে |

একক নাটকটি রচনা করেছেন সৈয়দ ইকবাল এবং চিত্রনাট্য ও পরিচালনা করেছেন সীমান্ত সজল |

যারা অভিনয় করেছেন নাটকটিতে তারা হলেন , মনোজ কুমার, নাজিয়া হক অর্ষা, নুসরাত জান্নাত রুহী,কেসি পাল সহ আরও অনেকে।।