অসহায় মানুষের পাশে অভিনেত্রী সুচন্দ্রা ভানিয়া

নিউজ ডেস্ক: এক সংকটকালীন পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে চলেছে সমগ্র মানবজাতি। পৃথিবীব‍্যাপী ছড়িয়ে পড়েছে ‘করোনা’ নামক এক মারণ ভাইরাস। এই মহামারী রুখতে সারা পৃথিবী জুড়ে চলছে লক ডাউন। সমস‍্যা আরও বেড়ে দাঁড়িয়েছে প্রত্যন্ত অঞ্চলগুলোতে। কারণ, লকডাউনের জেরে বন্ধ যান চলাচল। কাজেই, সেসমস্ত প্রান্তিক অঞ্চলের দুস্থরা পড়েছেন গভীর সমস্যায়।

লকডাউনে স্বাভাবিকবশতই সেখানকার জনজীবনও স্তব্ধ হয়ে গিয়েছে। রাজ্যে এমন গ্রামের সংখ‍্যাও নেহাত কম নয়। COVID-19 সংক্রমণের ভয় তাঁদের যতটা না কুরে কুরে খাচ্ছে, তার চেয়েও পেটে খিদের জ্বালা প্রায় অসম্ভব হয়ে দাঁড়িয়েছে। তাদের দিকে সাহায্যএর হাত বাড়াতেই এবার এগিয়ে এলেন এলেন টলিউড অভিনেত্রী তথা প্রযোজক সুচন্দ্রা ভানিয়া।  

পুরুলিয়ার প্রত‍্যন্ত গ্রাম তুলসীবাড়ি। সেই গ্রামে বসবাসকারী অধিকাংশ মানুষের অবস্থানই দারিদ্রসীমার নিচে। দু’বেলা দু’মুঠো খাবারের জোগাড় করতে উদয়াস্ত পরিশ্রম করেন তাঁরা। তবে দেশজুড়ে লকডাউনের জেরে বন্ধ হয়েছে আয়ের পথ। রোজগার নেই। বাড়িতে থাকা চাল-ডালের মতো অত্যাবশকীয় রসদও ফুরিয়েছে। সেই দিন আনি দিন খাই মানুষগুলির কাছে কিছু খাদ্যাসামগ্রী তথা নিত‍্য প্রয়োজনীয় দ্রব‍্যসামগ্রী নিয়ে পৌঁছলেন সুচন্দ্রা ভানিয়া।

অভিনেত্রীর এমন মানবিক উদ্যোগে অবশ্য তিনি পাশে পেয়েছেন প্রয়াস নামক এক স্বেচ্ছাসেবী সংস্থাকে। তাঁদের হাত ধরেই সুচন্দ্রা পুরুলিয়ার সেই প্রত্যন্ত অঞ্চলের দুস্থ মানুষগুলির কাছে পৌঁছে দিলেন ত্রাণসামগ্রী।

অভিনেত্রী-প্রযোজক সুচন্দ্রার কথায়, ‘আসুন না, আমরা শপথ নিই যে এই কঠিন সময়ে আমাদের একজন সহ-নাগরিককেও আমরা অভুক্ত না থাকতে দেব না।’

তবে শুধু তুলসীবাড়িই নয়, পুরুলিয়ার আরও অন‍্য এক অখ‍্যাত গ্রাম চিতারমাতের বাসিন্দারাও এই একই পরিস্থিতির সম্মুখীন হচ্ছেন। দ্রুত সেখানকার মানুষদের কাছেও সামান‍্য অন্ন সংস্থানের ব‍্যবস্থা করবে সুচন্দ্রা ভানিয়ার ‘জাস্ট স্টুডি’ও। লকডাউনের এই স্তব্ধ হয়ে যাওয়া সময়ে সামান‍্য ভাতের জন‍্য যাতে অভুক্ত না থাকতে নয় আমাদের কোনও সহ-নাগরিককে, সেই ব্যবস্থাই তারা করবে প্রান্তিক জায়গাগুলিতে পৌঁছে।

শুধু চিতারমা বা তুলসীবাড়িই নয় রাজ‍্যের এমন অনেক গ্রামে প্রয়োজন বেঁচে থাকবার জন‍্য একমুঠো খাবারের। সেই সব মানুষ যাতে অভুক্ত না থাকেন সেই ভাবনা থেকেই ‘প্রয়াস’ এর জন্ম। তবে, বলা যতটা সহজ হলেও আদতে এতগুলো মানুষের মুখে অন্ন তুলে দেওয়ার কাজটা মোটেই ততটা সহজ নয়।

তাই স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা ‘প্রয়াস’-এর মাধ‍্যমেই একটি ত্রাণ তহবিল গড়েছে সুচন্দ্রা ভানিয়ার জাস্ট স্টুডিও। শুধু তাই নয়, সেই তহবিলে চাইলে যে কেউ অর্থসাহায্য করতে পারবেন বলেও জানিয়েছেন তিনি। আর প্রত্যেকের দেওয়া অনুদান পৌঁছে যাবে দুস্থ মানুষগুলির কাছে। জনসমাজের উন্নতি এবং কল‍্যাণ সাধনের উদ্দেশে জাস্ট স্টুডিওর একটি মানবিক উদ‍্যোগের নামই ‘প্রয়াস’।